বায়তুল মোকাররমে শাহজাহান খান লাঞ্ছিত
Mohammed Youssef , শনিবার, ডিসেম্বর ২৯, ২০১২


“ইসলাম পবিত্র ও শ্রেষ্ঠ ধর্ম। পবিত্র কোরআনের কোনো আয়াতে রাজনীতির কথা নেই। রাসুল ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করেননি” এমন মন্তব্য করার কারণে লাঞ্ছিত হয়েছেন নৌপরিবহণ মন্ত্রী শাজাহান খান। এসময় তার দিকে জুতা ছুড়ে মারার ঘটনাও ঘটেছে।

শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে বায়তুল মোকাররমে আয়োজিত আন্তর্জাতিক কিরাত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে এ অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। পরে মন্ত্রী চলে যান। এ কারণে ঘণ্টাখানেক অনুষ্ঠানটি বন্ধ থাকে।

জানা যায়, অনুষ্ঠ‍ানের প্রধান অতিথি শাজাহান খান তার বক্তৃতায় ইসলামে রাজনীতি নিয়ে উপরোক্ত মন্তব্য করলে ক্ষুব্ধ মুসল্লিরা মন্ত্রীর এ কথার ব্যাখ্যা দাবি করে হইচই করতে থাকলে মন্ত্রী কোনো রকম ব্যাখ্যা না দিয়ে উত্তেজিত বক্তব্য চালিয়ে যেতে থাকেন। এসময় মুসল্লিরা তাকে লক্ষ্য করে জুতা নিক্ষেপ করতে থাকেন। এ সময় পিছন থেকে মুসল্লিরা ‘ধর, ধর’ আওয়াজও দিতে থাকে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে মন্ত্রীর ব্যক্তিগত নিরাপত্তারক্ষী ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা এসে তাকে উদ্ধার করেন। তাকে নিরাপদে সরিয়ে নিয়ে গাড়িতে উঠিয়ে দেন।

সেখানে উপস্থিত ইসলামিক ফাউন্ডেশনে মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজলসহ আয়োজকরা এতে হতভম্ব হয়ে যান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সন্ধ্যায় বায়তুল মোকাররম মসজিদের সাহানে (মূল মসজিদের বাইরের পূর্বদিকের অংশে) ‘ইন্টারন্যাশনাল কোরআন রিসাইটেশন এসোসিয়েশন (ইকরা)’ নামে একটি সংগঠন দেশী-বিদেশী ক্বারীদের নিয়ে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। ইরান, মিশর, মালয়েশিয়া, ব্রুনাইসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের ক্বারীরা প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।

এতে নৌ পরিবহণমন্ত্রী শাজাহান খান প্রধান অতিথি ছিলেন। বিকেল তিনটা থেকে অনুষ্ঠান শুরু হলেও মূল বক্তব্য হয় সন্ধ্যার পর। সেখানে দেশী-বিদেশী কারীদের ক্বেরাত শুনতে বিপুলসংখ্যক মুসল্লি উপস্থিত ছিলেন।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা বিল্লাল বিন কাসেমের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি জানান, এটি ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কোন অনুষ্ঠান ছিল না। নিজেও সেখানে উপস্থিত ছিলেন না। তবে বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটেছে বলে শুনেছেন।

এদিকে জুতা মারার ঘটনা সম্পর্কে মন্ত্রী বলেছেন, ‘আমি চলে আসার পর হয়তো জুতা মারামারি করেছে। এতে বিদেশিদের কাছে আমাদের দেশের মর্যাদা্ ক্ষুণ্ণ করা হয়েছে।