কে তুমি
মো: জাফরুল্লাহ (প্রয়াত:), শনিবার, নভেম্বর ০৩, ২০১২


মো: জাফরুল্লাহ । পেশায় ছিলেন ব্যাঙ্কার। কাজকর্মের পাশাপাশি শখ ছিল সাহিত্যচর্চা, দেশ-বিদেশে ভ্রমন এবং জ্ঞানার্জন। ধারালো শব্দ ব্যবহার করে লিখে গেছেন কিছু গদ্য এবং কবিতা। সময়ের অভাব এবং অন্যান্য কারণে কখনোই কোনটা প্রকাশ করা হয়ে ওঠেনি। আজ তার মৃত্যুর কয়েক বছর পর হাতে এলো আমাদের এইদেশের রাজনৈতিক কর্তাব্যক্তিদের উদ্দেশ্যে তার লেখা একটি কবিতা। এখানে তিনি সেই অভিশাপকে তুলে ধরেছেন যা থেকে আজও আমাদের দেশের জনগণ বেরিয়ে আসতে পারেনি।



তুমি বড়ই মিথ্যাবাদী নেতা
তুমি বড়ই ব্যক্তিত্বহীন কথক
লাগামহীন বাক্যবাণে জাতির বিবেককে দংশন কর
কত নিম্নমান তোমার তা মাপার যন্ত্র এখনো আবিষ্কার হয়নি

নিজের দেশের ধংসের জন্য তোমার কত প্রচার
কত প্রপাগান্ডা তুমি করতে পারো তার কোনো নজির নেই
নোংরা রাজনীতিতে তুমি পুলকিত বোধ কর
তুমি যেনো এক গোবরে পোকা ভালো কিছুই তোমার পছন্দ হয়না

তুমি এক মৌসুমী প্রাণী, ঋতুতে ঋতুতে তোমার কত বেশ
কত রূপ তুমি ধরতে পারো
এ যেনো তোমার চরিত্রেরই বহিঃপ্রকাশ
সত্যিই তুমি বহুরুপী
তুমি এক অদ্ভূত বিপরীত
সব সত্যই তোমার নিকট মিথ্যা
সব মিথ্যাই তোমার নিকট সত্য
প্রতিযোগিতায় কোনো খলনায়কই তোমার নিকট জিতবেনা

কত অভিনয় তুমি জানো
তুমি মেরেও জয়ী কেঁদেও জয়ী
তোমার তুলনা তুমিই
আর তোমার অনুসারীরা
উচ্চ ডিগ্রীধারী মিথ্যাচারীরা
কি অদ্ভূত তোমাদের বাচনভঙ্গী

তোমরা নিজেদের যত বেশী চতুর মনে কর
জাতিকেও তোমরা সে পরিমাণ বোকা মনে কর
এতেই তোমাদের ভরাডুবি এতেই তোমাদের পরাজয়
তোমাদের বিরোধীদের দোওয়া করা উচিত
তোমাদের মুখ, কন্ঠ ও জিহবা যেনো সুস্থ থাকে
যাতে তোমরা অনর্গল মিথ্যা ও আবোল তাবোল বকে যেতে পারো - এতেই চলবে

সাতান্ন হাজার বর্গমাইলের এ দেশে
অতো মিথ্যা আর আটেনা, আর ধরেনা
তাই তোমার মিথ্যা ছড়িয়ে পরেছে দেশ থেকে দেশান্তরে
বিশ্ব বিবেককেও আজ তোমরা ভাবিয়ে তুলেছ
তোমার এ দেশপ্রেমহীন আত্মপূজারী পঙ্কিলতা
দেশকে কোথায় নিয়ে পৌঁছাবে কে জানে

তুমি যেনো এক বড় জাদুকর
যে কোনো জাতীয় দুর্ঘটনার বা বিপর্যয়ের পরে
সাথে সাথেই তুমি বলে দিতে পারো
কে এ বিপর্যয় ঘটিয়েছে, কে এর পিছনে আছে
এ যেন তোমার সাথে আলাপ করেই বা তোমার পরামর্শেই ঘটিয়েছে ঘটনাটি
কি অদ্ভূত তোমার পান্ডিত্ব, কি অদ্ভূত তোমার জাদুবিদ্যা সাধনা

দ্রব্য মুল্য বৃদ্ধির জন্য তুমি সিন্ডিকেট গড়
অর্থনীতি ধ্বংসের জন্য ইন্ডাসট্রিতে উৎশৃঙ্খলতা সৃষ্টি কর
যে কোনো ছুতোতেই গাড়ি বাড়ি ভাঙ্গ, জালাও পোড়াও
কি অদ্ভূত তোমার রাজনীতি কি অদ্ভূত তোমার দেশপ্রেম
এ যেনো ভালো অর্থনীতির দেশের জন্য তোমার প্রেম নেই
তোমার দেশপ্রেম যেনো শুধু অকার্যকর রাষ্ট্রের জন্য
তাই তোমার কত প্রচেষ্টা বাংলাদেশ যেনো অকার্যকর রাষ্ট্র হয়
বাংলাদেশ যেনো সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হয়

তুমি এক ব্যতিক্রমী আবিষ্কারক
দেশের সংখালঘুরা নির্যাতনের শিকার
তা প্রমাণ করার জন্য নির্যাতনের অভিনয় করে ফিল্ম বানাও
তুমি এক অনন্যসাধারণ চিত্র নির্মাতা

জাতির বড় দূর্ভাগ্য যে তোমাদের মতো এহেন নিম্নমান ব্যক্তিরা
জাতির নিয়ামক, জাতির কর্ণধার
হে দুর্ভাগা দেশ, হে দুর্ভাগা জাতি, আর কতকাল এহেন চরিত্রের মিথ্যাচারীরা
তোমার নেতৃত্ব দেবে, আর কতকাল তোমার রক্ত চুষে চুষে খাবে

হে জাতি পরখ করে দেখো কে এ বিশেষ ব্যক্তিত্ব
কার চরিত্রে এতো গুনের সমাহার
কার চরিত্রে উপরোক্ত বিষয়গুলো
অহরহ মিছিল করে সমাবেশ ঘটাচ্ছে