বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে বিশাল মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্টিত
এইদেশ ডেস্ক-, সোমবার, মার্চ ১১, ২০১৩


বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে বিশাল মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্টিত

বাংলাদেশের সংখ্যালঘু বৌদ্ধদের বিহার ,হিন্দু মন্দির,ঘরবাড়ি,বহু দোকানপাঠ ধ্বংস,লুটপাঠ ও অগ্নিসংযোগ করে জায়ামাত ইসলামী ও অঙ্গ সংগঠন ছাত্রশিবির ।এই বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ কানাডা শাখার উদ্যোগে গত ১০ মার্চ,রবিবার বেলা ১২ টায় মন্ট্রিয়েল শহরে ডাউনটাউন চত্বরে বিশাল মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্টিত হয় । প্রচন্ড ঠান্ডার মধ্যেও সব বয়সের নারী-পুরুষ-শিশুরা বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাকার্ড-ফেষ্টুন-ব্যানার নিয়ে মিছিলে অংশ গ্রহন করে।
শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে ডাউনটাউন সেন্ট্ ক্যাথরিন স্ট্রীট । মিছিল চলাকালে শত শত মানুষ হাত নেড়ে গাড়ির হর্ণ বাজিয়ে মিছিলকে সমর্থন জানায় । উক্ত মিছিলে নেতৃত্ব দেন দীপক ধর, সুকান্ত বড়ুয়া, বাপ্পা বড়ুয়া, কুসুম বড়ুয়া, প্রদীপ সরকার,কৃপেশ পাল,কৃষ্ণপদ সেন,আনন্দ মোহন দাস, ঝুন্টু নাথ ,রতন দও, মৃদুল তালুকদার, স্বপ্না বিশ্বাস,পিনাকি ভট্টাচার্য ,নিতাই দেব,ঝুটন তরফদার,টিপু কান্তি বড়ুয়া ,নরান্দু ঘোষ ,দেবাশিষ ধর প্রমুখ । মিছিল শেষে ঐক্য পরিষদের সভাপতি জয়দত্ত বড়ুয়া’র সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ঋক ভট্টাচার্য,দিলীপ কর্মকার ,বাবলা দেব ,নিরঞ্জন দাস, মীর হাসান লাকী ।বক্তারা বলেন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপর চলমান সহিংসতা অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে,যারা এই বর্বরোচিত হামলার সাথে জড়িত তাদেরকে কঠোর শাস্তি প্রদান করতে হবে,ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করতে হবে ।এই ধরনের ঘটনা যাতে আর না ঘটে তার জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বক্তারা সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান । বক্তারা আরো বলেন বাংলাদেশের স্বাধীনতা বিরোধী,সাম্প্রদায়িক চক্র যারা মুক্তিযুদ্ধের সময় নির্বিচারে নারী-পুরুষ শিশু হত্যা,নারী ধর্ষণ,লুঠতরাজ ও নানাবিদ অপকর্ম করেছে এবং এখনও বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে বিশ্বাস করে না,এখনও সাম্প্রদায়িক রাজনীতিতে বিশ্বাসী সেই জামাত-শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে । সব শেষে ঐক্য পরিষদের সভাপতি জয়দও বড়ুয়া বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের বিরুদ্ধে বিবৃতি দেওয়ায় জাতিসংঘ, ইউএস স্টেট ডিপার্টমেন্ট ও কানাডা সরকারকে সমাবেশের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে পরবর্তী আন্দোলনের কর্মসূচী ঘোষণার মধ্য দিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ পরিসমাপ্তি করেন । সমাবেশটি সঞ্চালনায় ছিলেন ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সরোজ কুমার দাস ।