বিজয় দিবস ও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উদযাপন
এইদেশ, শুক্রবার, জানুয়ারি ১৭, ২০১৪


ভয়েস ফর একাউন্ট্যাবিলিটি এন্ড গুড গভার্নেন্স ইন বাংলাদেশ – ভিএজি,বির উদ্যোগে বাংলাদেশের ৪২তম বিজয় দিবস ও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে গত ১৫ ডিসেম্বর রোববার বিকেল ৫টায় মন্ট্রিয়ল নগরীর ৬৯৭-৬৭৬৭ কোট দ্য নেইজ মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। শাহ মোস্তাইন বিল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক আবুল আলম, অধ্যাপক আনন্দ মোহন, জিয়াউল হক জিয়া, দিলীপ কর্মকার, বিদ্যুৎ ভৌমিক, ডঃ মহিউদ্দিন তালুকদার, ডঃ শোয়েব সাঈদ, শরীফ ইকবাল চৌধুরী, সদেরা সুজন, খ ম তানভীর ইউসুফ রনি, এ এফ এম মাহমুদুল হাসান, আরিয়ান হক, মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন পরাগ ও মোঃ এনামুল হক।

আলোচনাকালে বক্তাগণ বলেন, বিজয় দিবস অবিমিশ্র আনন্দের দিন নয়। স্বজন হারানোর বেদনাসিক্ত ও শৌর্য-বীর্যের গৌরবে উদ্ভাসিত এক অবিস্মরণীয় দিনের নাম ১৬ ডিসেম্বর। একাত্তরের রক্তক্ষরা দিনগুলিতে লাখ লাখ মানুষকেই শুধু হত্যা করা হয় নি; বিজয়ের পূর্ব মুহুর্তে বেছে বেছে নিধন করা হয়েছে বুদ্ধিজীবীদেরকেও। একাত্তর সনের পঁচিশে মার্চ থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত মোট এক হাজার সত্তর জন বাঙালি বুদ্ধিজীবীকে হত্যা করা হয়েছে। তা সত্ত্বেও দেশপ্রেমের অদম্য শক্তিই আমাদেরকে মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ী করেছে। কিন্তু সেই সময়কার দেশপ্রেম আজ আর রাজনৈতিক অঙ্গনে অথবা বুদ্ধিজবী মহলে অবশিষ্ট নেই। এখনকার রাজনীতিকরা দেশপ্রেমের উর্ধে দলীয় স্বার্থকে স্থান দিয়েছেন। আর বুদ্ধিজীবীরা দলীয় রাজনীতির পক্ষে কথা বলে নিজেদের বুদ্ধি বিনাশ করছেন।